1. admin@daynikdesherkotha.com : Desher Kotha : Daynik DesherKotha
  2. arifkhanjkt74@gamil.com : arif khanh : arif khanh
বিরামপুরে সাংস্কৃতিক অঙ্গনে উজ্জ্বল নক্ষত্র লাবিবা - দৈনিক দেশেরকথা
রবিবার, ২১ জুলাই ২০২৪, ০৯:৪৭ পূর্বাহ্ন
শিরোনাম :
আমার বিশ্বাস তারা ন্যায়বিচার পাবে, হতাশ হতে হবে না,জাতির উদ্দেশে প্রধানমন্ত্রী শিক্ষার্থীরা কোথাও আগুন কিংবা ভাঙচুর করেনি: ডিবিপ্রধান চলমান কোটা সংস্কার আন্দোলনের বিষয়ে সন্ধ্যা সাড়ে ৭টায় জাতির উদ্দেশে ভাষণ দেবেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা উলিপুরে আলোকিত শিশু কন্ঠ পরিষদের আয়োজনে পবিত্র  আশুরা পালিত পবিত্র আশুরা উপলক্ষে বেনাপোল বন্দরে আমদানি-রপ্তানি বাণিজ্য বন্ধ ছারছীনার পীর সাহেব হুজুর আর নেই দেশের সব স্কুল-কলেজ অনির্দিষ্টকালের জন্য বন্ধ ঘোষণা নলডাঙ্গায় ১১ অসহায় পরিবারের মাঝে চেক ও ঢেউটিন বিতরন বাদুরতলা স্পোর্টিং ক্লাবের শুভ উদ্বোধন ঝালকাঠির বাসন্ডা ব্রীজটি বার্ধক্যের ভারে যেন মরন ফাঁদ

বিরামপুরে সাংস্কৃতিক অঙ্গনে উজ্জ্বল নক্ষত্র লাবিবা

নয়ন হাসান
  • প্রকাশ সোমবার, ৪ জুলাই, ২০২২
desherkotha

 129 বার পঠিত


বিরামপুর প্রতিনিধি>সাংস্কৃতিক মঞ্চ মাতিয়ে নিজ প্রতিভার বিকাশ ঘটিয়ে দর্শকদের দৃষ্টি ও মনে স্থান করে নিয়েছে স্কুল পড়ুয়া তৃতীয় শ্রেণির ছাত্রী লাবিবা। পুরো নাম তার তানিসা জান্নাত লাবিবা।
বিরামপুরে মেডিকেল রিপ্রেন্টেটিভ কর্মরত হিসেবে কর্মরত তমিজ উদ্দিন ও গবীরপাড়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষিকা আর্জিনা খাতুন লিপি’র একমাত্র মেয়ে।

লাবিবার বিষয়ে কথা বললে লাবিবার মা আর্জিনা খাতুন লিপি জানান, ছোটবেলা থেকেই লাবিবা’র নাচের প্রতি বেশ ঝোঁক ও আগ্রহ ছিল বেশি। ছোটবেলা থেকেই সে জড়তাহীন ভাবে যে কোন সময় গানের সাথে নাচতো।

লাবিবার আগ্রহে পিছু টানেনি আমরা। আর এই উদারতার মূল্যও দিতে শিখেছে লাবিবা। বর্তমানে সে বিরামপুর মডেল সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের ৩য় শ্রেণির অধ্যয়নরত ছাত্রী। তবে প্রাক-প্রাথমিক শ্রেণিতে পড়ার সময়ই সে নাচে উপজেলা পর্যায়ে প্রথম স্থান অধিকার করেছে। এরপর একের পর এক পুরস্কার লাবিবাকে উৎসাহ জাগিয়ে সাফল্যের পথে নিয়ে গেছে। 

তিনি আরো বলেন, গত ২০২১ সালে জাতীয় শিশু পুরুস্কার প্রতিযোগিতায় মনিপুরী নৃত্য ও লোক নৃত্যে সে প্রথম স্থান অধিকার করেছে। ২০২২ সালে জাতীয় শিশু দিবসের অনুষ্ঠানে দিনাজপুর-৬ আসনের সংসদ সদস্য শিবলী সাদিক এমপি’র উপস্থিতিতে মঞ্চে সে পরীবানু গানের সাথে নৃত্য পরিবেশন করে সকলের দৃষ্টি আকর্ষন করে এবং সকলের মন জয় করে নেয়।

নাচের পাশাপাশি লেখাপড়ায়ও সে মেধার স্বাক্ষর ধরে রেখেছে। কোমলমতি লাবিবা ছোটবেলা থেকেই অসহায় মানুষদের প্রতি দয়াশীল। তার টিফিনের টাকা ও রিক্সা ভাড়ার টাকা খরচ না করে ভিক্ষুকদের দান করে থাকে।

বয়স্ক ভিক্ষুকদের দাদু ও দাদীমা বলে সম্বোধন করে তাদের মনকে বিগলিত করে তোলে। লাবিবা ভবিষ্যতে লেখাপড়া শিখে মানব সেবায় নিজেকে নিয়োজিত করতে চায়। লাবিবা জীবনে উত্তরোত্তর সাফল্য ও সদিচ্ছা পুরণে সকলের দোয়া কামনা করেছেন লাবিবার মা আর্জিনা খাতুন লিপি।

দেশেরকথা/বাংলাদেশ

এই বিভাগের আরো খবর

ফেসবুকে আমরা

এই সাইটের কোনো লেখা বা ছবি অনুমতি ছাড়া কপি করা বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি।কপিরাইট @২০২০-২০২৪ দৈনিক দেশেরকথা কর্তৃক সংরক্ষিত।
প্রযুক্তি সহায়তায় Shakil IT Park