1. admin@daynikdesherkotha.com : Desher Kotha : Daynik DesherKotha
  2. arifkhanhrd74@gmail.com : desher kotha : desher kotha
প্রেমিকার মুখে বিষ দিয়ে হত্যার চেষ্টার অভিযোগ  প্রেমিক মেহেদী হাসানের বিরুদ্ধে - দৈনিক দেশেরকথা
বুধবার, ২৬ জুন ২০২৪, ০১:৩৩ পূর্বাহ্ন
শিরোনাম :

প্রেমিকার মুখে বিষ দিয়ে হত্যার চেষ্টার অভিযোগ  প্রেমিক মেহেদী হাসানের বিরুদ্ধে

ইউনুছ
  • প্রকাশ বৃহস্পতিবার, ১৩ জানুয়ারি, ২০২২

 147 বার পঠিত

কুড়িগ্রাম  প্রতিনিধি >প্রেমিকার মুখে বিষ ঢেলে দিয়ে হত্যার চেষ্টায় প্রেমিক মেহেদী নামের এক সেনা সদস্যের বিরুদ্ধে অভিযোগ দায়ের করা হয়েছে।
১৮ ডিসেম্বর (শনিবার) সকাল ১০টার দিকে কুড়িগ্রামের রৌমারী উপজেলার দঁাতভাঙ্গা ইউনিয়নের উপজেলার দঁাতভাঙ্গা দ্বি-মুখী বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ে এ ঘটনাটি ঘটে। সে ওই বিদ্যালয়ের দশম শ্রেণীর শিক্ষার্থী।
এঘটনায় ওই স্কুল শিক্ষার্থীর বাবা বাদী হয়ে গত মঙ্গলবার রৌমারী থানায় একটি অভিযোগ দায়ের করেছেন।অভিযোগ ও স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, উপজেলার দঁাতভাঙ্গা দ্বি-মুখী বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের শিক্ষক কামাল হোসেন বিএসসি দশম শ্রেণীর শিক্ষাথর্ীদের প্রাইভেট পড়ান।
ঘটনার দিন ধর্মপুর গ্রামের আজবাহার আলীর মেয়ে দশম শ্রেণীর শিক্ষার্থী ওই শিক্ষকের কাছে প্রাইভেট পড়তে আসে। পরে শিক্ষার্থীর প্রেমিক দাঁতভাঙ্গা গ্রামের সাইজুদ্দিনের ছেলে সেনাসদস্য মেহেদী হাসানকে প্রেমের সম্পর্ক ধরে বিবাহের চাপ সৃষ্টি করে। এতে ওই সেনা সদস্য মেহেদী হাসান তাকে বিবাহ করতে অস্বীকৃতি জানায়।
এনিয়ে প্রেমিক ও প্রেমিকার মধ্যে কথাকাটাকাটির এক পর্যায় মেহেদীর হাতে থাকা বিষ জোরপূর্বক প্রেমিকার মূখে ঢেলে দেয়। এতে প্রেমিকা অসুস্থ হলে বান্ধবিরা তাকে উদ্ধার করে রৌমারী স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সেভর্তি করান। মেহেদী হাসান এরই মধ্যে সেনাবাহিনীর চাকুরেিতে যোগদান করার কথা।স্কুল শিক্ষার্থী অভিযোগ করে বলেন, মেহেদী হাসানের সাথে আমার দীর্ঘদিন থেকে প্রেমের সম্পর্ক চলছে এবং সে আমাকে বিয়ের প্রতিশ্রুতি দেয়। মেহেদীর সেনাবাহিনীতে চাকুরি হওয়ায় সে আমাকে অস্বীকার করছে। আমি এর সঠিক বিচার চাই।
অভিযুক্ত মেহেদীর বড় ভাই দঁাতভাঙ্গা দ্বী-মুখী বালিকা উচ্চ ব্যিালয়ের অফিসহকারি মমিনূল ইসলাম জানান, ঘটনাটি লোক মারফত শুনেছি এবং সমাধানের চেষ্টা চলছে।দঁাতভাঙ্গা ইউপি চেয়ারম্যান এসএম রেজাউল করিম বলেন, মেয়ে পক্ষ আমার কাছে সমাধানের জন্য এসেছিল।
আমি ছেলে পক্ষকে সমাধানের লক্ষে কথা বলেছিলাম কিন্ত তারা কোন পাত্তা দেয়নি। রৌমারী থানারঅফিসার ইনচার্জ মোন্তাছের বিল্লাহ বলেন, অভিযোগ পেয়েছি তদন্ত করে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

দেশেরকথা/বাংলাদেশ

এই বিভাগের আরো খবর

ফেসবুকে আমরা

এই সাইটের কোনো লেখা বা ছবি অনুমতি ছাড়া কপি করা বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি।কপিরাইট @২০২২-২০২৩ দৈনিক দেশেরকথা কর্তৃক সংরক্ষিত।
প্রযুক্তি সহায়তায় Shakil IT Park