1. admin@daynikdesherkotha.com : Desher Kotha : Daynik DesherKotha
  2. arifkhanhrd74@gmail.com : desher kotha : desher kotha
  3. mdtanjilsarder@gmail.com : Tanjil News : Tanjil Sarder
নামে মাত্র সহজ শর্তে ব্যাংক ঋণ বাস্তবে পুরোটাই ভিন্ন অর্থের অভাবে পটুয়াখালী ডেইরী ব্যবসায়ী মহিলা উদ্যোক্তা  ইতি বেগম হতাশাগ্রস্ত । - দৈনিক দেশেরকথা
শনিবার, ০৪ ফেব্রুয়ারী ২০২৩, ০৯:১৪ পূর্বাহ্ন
শিরোনাম :
বিজ্ঞান শিক্ষায় পিছিয়ে বাংলাদেশ, স্মার্ট বাংলাদেশ গড়তে বিজ্ঞান শিক্ষার দৈন্যতা বড় একটি চ্যালেঞ্জ বগুড়ায় উপনির্বাচন নিয়ে জেলা আওয়ামী লীগের ধন্যবাদ জ্ঞাপন কিশোরগঞ্জে ভিজিডি কার্ডের সঞ্চয়ের টাকা ফেরত পাচ্ছেন সুবিধাভোগীরা কোনো কারনে পাঠ্যবই পৌঁছতে দেরি হলে ওয়েবসাইট থেকে পড়াতে শিক্ষকদের পরামর্শ দিয়েছেন শিক্ষামন্ত্রী পুরান ঢাকার ঐতিহ্যবাহী কলেজে অফিসার্স কাউন্সিল নির্বাচন ২০২৩ সেপ্টেম্বরে ভারত সফরে যাবেন জননেত্রী প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বিরামপুরে সড়ক দুর্ঘটনায় নিহত-২ উপ-নির্বাচন ঠাকুরগাঁওয়ে ভোটকেন্দ্রে নেই ভোটারের দেখা চাটখিলে রেড ক্রিসেন্টের উদ্যেগে শীতবস্ত্র বিতরণ ইবিতে অনুষ্ঠিত হয়েছে পিএইচডি সেমিনার

নামে মাত্র সহজ শর্তে ব্যাংক ঋণ বাস্তবে পুরোটাই ভিন্ন অর্থের অভাবে পটুয়াখালী ডেইরী ব্যবসায়ী মহিলা উদ্যোক্তা  ইতি বেগম হতাশাগ্রস্ত ।

দেশেরকথা
  • প্রকাশ শুক্রবার, ৮ এপ্রিল, ২০২২

 62 বার পঠিত


পটুয়াখালী সংবাদদাতা>নামে মাত্র সহজ শর্তে ব্যাংক ঋণ বাস্তবে পুরোটাই ভিন্ন  অর্থাভাবে পটুয়াখালীর ডেইরী ব্যবসায়ী মহিলা উদ্যোক্তা  পথে বসার উপক্রম হয়েছে। প্রায় ২ বছর আগে পটুয়াখালী উপজেলার মরিচবুনিয়া গ্রামের মো: নুরুজ্জামানের স্ত্রী ইতি বেগম যুব উন্নয়নের প্রশিক্ষণ নিয়ে একটি ডেইরি খামার করেন। খামারটি তার পরিবারের সদস্যরা মিলে দেখাশোনা করছেন।

খামারে ফ্রিজিয়াম জাতের ১৪টি  গরু লালন পালন করা হচ্ছে। এদের মধ্যে ৪টি গরুতে ১৪ কেজির মত দুধ দেয়এ বিষয়ে ইতি বেগম জানান, আমি অনেক কষ্ট করে আত্মীয় স্বজনের নিকট থেকে ধারদেনা করে লাভের আশায় অতি কষ্টে ডেইরি ফার্ম গড়ে তুলেছিলাম। কিন্তু করোনার কারণে দুধের দাম কমে গেছে অপরদিকে গরুর খাদ্যের দাম বেড়ে গেছে।

করোনার প্রভাবে মানুষের ক্রয় ক্ষমতা কমে যাওয়ায় আমরা ক্ষুদ্র ব্যবসায়ীরা বিপাকে পড়েছি। ডেইরী ফার্মের জন্য  সরকারী বেসরকারী কোন অনুদান, প্রনোদনা বা ব্যাংক লোন পাচ্ছি না। পটুয়াখালী কর্মসংস্থান ব্যাংক, কৃষি ব্যাংক ও রুপালী ব্যাংকে লোনের জন্য দীর্ঘদিন ধর্না ধরেও কোন সহায়তা পাই নাই। ব্যাংকগুলো আমাদের লোন দিতে চাচ্ছে না। তারা বিভিন্ন অজুহাতে আমাদের ঘুরিয়ে হয়রানি করছে। 

আমাদের ভবিষ্যত অন্ধকারে নিমজ্জিত হচ্ছে। এ অবস্থায় সরকারী সহায়তা ছাড়া আমাদের বেঁচে থাকার কোন উপায় নাই।এ বিষয়ে কর্মসংস্থান ব্যাংকের পটুয়াখালী শাখার ব্যবস্থাপক জানান জমির মৌজার দামের অর্ধেক পরিমাণ লোন পাবেন তবে জমি ব্যাংকের নামে মর্গজ দিতে হবে।

রুপালী ব্যাংকের পটুয়াখালী শাখা ব্যবস্থাপকজানান জমির মৌজার দামের অর্ধেক পরিমাণ লোন পাবেন তবে জমি ব্যাংকের নামে মর্গজ দিতে হবে।  কিন্তু খামাড়ীর জমি না থাকলে কি সে ব্যাংক থেকে কোন সহযোগীতা পাবেনা সরকারের কাছে জানতে চায় খামাড়ীর ব্যবসায়ীরা।

দেশেরকথা/বাংলাদেশ

এই বিভাগের আরো খবর

ফেসবুকে আমরা

এই সাইটের কোনো লেখা বা ছবি অনুমতি ছাড়া কপি করা বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি।কপিরাইট @২০২০-২০২১ দৈনিক দেশেরকথা কর্তৃক সংরক্ষিত।
প্রযুক্তি সহায়তায় Shakil IT Park