1. admin@daynikdesherkotha.com : Desher Kotha : Daynik DesherKotha
  2. arifkhanhrd74@gmail.com : desher kotha : desher kotha
দীর্ঘ দুই বছর পর আবারো জমে উঠেছে ত্রিশালের ঈদ কেনাকাটা - দৈনিক দেশেরকথা
মঙ্গলবার, ০৫ মার্চ ২০২৪, ০৭:১৫ অপরাহ্ন
শিরোনাম :
চট্টগ্রামের চিনির মিলে আগুন ৪৯৩ জনকে নিয়োগ দেবে বাংলাদেশ রেলওয়ে আমতলী পৌর নির্বাচনে গুন্ডা,হুন্ডা,পান্ডা রাস্তায় থাকবেনা:নির্বাচন কমিশনার আহসান হাবিব তালতলীতে ভোক্তা অধিকারের অভিযানে তিন ব্যবসা প্রতিস্ঠানকে জরিমানা সদরপুরে জাটকা নিধন চলছে ইবির জিয়া মোড়ে নেই শৃঙ্খলা, গতিরোধক নির্মাণের দাবি শিক্ষার্থীদের বিজিবিকে বিশ্বমানের একটি আধুনিক বাহিনী হিসেবে গড়ে তুলতে চাই : প্রধানমন্ত্রী আজ বিজিবি দিবস, ৭২ জনকে পদক দিবেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা গাইবান্ধায় ট্রাক চাপায় মোটরসাইকেল আরোহী ২ যুবক নিহত। অবৈধ হাসপাতাল, ক্লিনিক ও ডায়াগনস্টিক সেন্টার বন্ধ করতে ডিসিদের সহায়তা চাইলেন স্বাস্থ্যমন্ত্রী

দীর্ঘ দুই বছর পর আবারো জমে উঠেছে ত্রিশালের ঈদ কেনাকাটা

ইমরান হাসান
  • প্রকাশ বুধবার, ২৭ এপ্রিল, ২০২২

 153 বার পঠিত

ত্রিশাল প্রতিনিধি> ঈদ মানে আনন্দ, ঈদ মানেই খুশি। মুসলমানদের অন্যতম প্রধান ধর্মীয় উৎসব পবিত্র ঈদুল ফিতর। অনাবিল আনন্দ উল্লাসের মধ্য দিয়ে উদযাপিত হয় দিনটি। আর সেই আনন্দ আর খুশি অপূর্নই থেকে যায় যদি গায়ে নতুন জামা কাপড় না থাকে।

পবিত্র ঈদুল ফিতরকে সামনে রেখে উপজেলার বিভিন্ন বিপনি বিতানে জমে উঠেছে ঈদের কেনাকাটা। নগরীর শপিং মলগুলো বর্ণিল সাজে সেজেছে। দীর্ঘ দুই বছর করোনার পর প্রাণ ফিরে পেয়েছে শপিংমলগুলোতে। সকাল থেকে মধ্যরাত পর্যন্ত চলছে বেচাকেনা।

ক্রেতাদের ভিড়ে জমজমাট হয়ে উঠেছে ব্র্যান্ডের শো-রুম গুলোও। ঈদ যত ঘনিয়ে আসছে ক্রেতাদের উপস্থিতি ততই বাড়ছে। গতদুই বছর করোনার কারণে নানা বিধি থাকায় আশানুরুপ ব্যবসা করতে পারেননি দোকানিরা।

এবার রাষ্ট্রীয় কোনো বিধি নিষেধ না থাকায় এবং ক্রেতাদের উপস্থিতি বেশি হওয়ায় স্বস্তি ফিরেছে ব্যবসায়ীদের মধ্যে। এক মার্কেট থেকে অন্য মার্কেট ছুটছেন বিভিন্ন বয়সী মানুষ তাদের পছন্দের জিনিসপত্র কিনতে।

নগরীর প্রতিটি মার্কেটেই ক্রেতাদের উপচেপড়া ভিড়। ক্রেতা আকৃষ্ট করতে শহরের নামিদামি ব্র্যান্ডের দোকান, শপিংমল ও ফুটপাতে মনোলোভা ও রকমারি ডিজাইনের শাড়ী-পাঞ্জাবি, থ্রি-পিস ও বাহারি পোশাকের পসরা সাজিয়ে বসেছে।

ত্রিশালেজুড়ে দেশের নামী-দামি ফ্যাশন হাউজগুলোতে রয়েছে বিপুল পণ্যের সমাহার। মসজিদরোড, আবুল হোসেন র্মাকেট, রশিদ চেয়ারম্যার মার্কেট, সানাউল্লাহ মার্কেটসহ শপিংমল, কাপড়ের দোকান, খ্যাতনামা ফ্যাশন হাউজ, ব্র্যান্ডশপে ঈদের কেনাকাটায় ব্যস্ত ক্রেতা-বিক্রেতারা।

গত দুইবছর ব্যাপক লোকসান হয় ব্যবসায়ীদের। তবে এবছর করোনা স্বাভাবিক থাকায় বিক্রি ভালো হবে বলে আশা করছেন ব্যবসায়ীরা। অন্যদিকে দীর্ঘদিন পর স্বাচ্ছন্দ্যে ঈদের কেনাকাটা করতে পেরে অনেক খুশি ক্রেতারা।

ময়মনসিংহে দেশের নামী-দামি প্রায় সকল ব্র্যন্ডশপ ও ফ্যাশন হাউজ গুলোর শো-রুম থাকায় রাজধানীমুখি ক্রেতা কিছুটা হলেও কমবে এবং বেচাকেনা জমজমাট হয়ে উঠবে এমনটাই আশা ব্যবসায়িদের।

দেশেরকথা/বাংলাদেশ

এই বিভাগের আরো খবর

ফেসবুকে আমরা

এই সাইটের কোনো লেখা বা ছবি অনুমতি ছাড়া কপি করা বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি।কপিরাইট @২০২২-২০২৩ দৈনিক দেশেরকথা কর্তৃক সংরক্ষিত।
প্রযুক্তি সহায়তায় Shakil IT Park