1. admin@daynikdesherkotha.com : Desher Kotha : Daynik DesherKotha
  2. arifkhanjkt74@gamil.com : arif khanh : arif khanh
কুড়িগ্রামের রৌমারীতে  উপবৃত্তি না পেয়ে শিক্ষার্থীর মানববন্ধন - দৈনিক দেশেরকথা
রবিবার, ২১ জুলাই ২০২৪, ১০:২৬ পূর্বাহ্ন
শিরোনাম :
আমার বিশ্বাস তারা ন্যায়বিচার পাবে, হতাশ হতে হবে না,জাতির উদ্দেশে প্রধানমন্ত্রী শিক্ষার্থীরা কোথাও আগুন কিংবা ভাঙচুর করেনি: ডিবিপ্রধান চলমান কোটা সংস্কার আন্দোলনের বিষয়ে সন্ধ্যা সাড়ে ৭টায় জাতির উদ্দেশে ভাষণ দেবেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা উলিপুরে আলোকিত শিশু কন্ঠ পরিষদের আয়োজনে পবিত্র  আশুরা পালিত পবিত্র আশুরা উপলক্ষে বেনাপোল বন্দরে আমদানি-রপ্তানি বাণিজ্য বন্ধ ছারছীনার পীর সাহেব হুজুর আর নেই দেশের সব স্কুল-কলেজ অনির্দিষ্টকালের জন্য বন্ধ ঘোষণা নলডাঙ্গায় ১১ অসহায় পরিবারের মাঝে চেক ও ঢেউটিন বিতরন বাদুরতলা স্পোর্টিং ক্লাবের শুভ উদ্বোধন ঝালকাঠির বাসন্ডা ব্রীজটি বার্ধক্যের ভারে যেন মরন ফাঁদ

কুড়িগ্রামের রৌমারীতে  উপবৃত্তি না পেয়ে শিক্ষার্থীর মানববন্ধন

ইউনুছ
  • প্রকাশ মঙ্গলবার, ২ আগস্ট, ২০২২

 113 বার পঠিত

কুড়িগ্রাম প্রতিনিধি >যাদুরচর ডিগ্রি কলেজের প্রথম বর্ষে শিক্ষার্থী শিক্ষা উপবৃত্তি না পেয়ে মানববন্ধন করেছেন কলেজ শিক্ষার্থী।  মঙ্গলবার বেলা  ১২টার দিকে রৌমারী উপজেলার যাদুরচর ডিগ্রি কলেজ চত্বরে এ মানববন্ধন পালন করা হয়েছে। এতে শিক্ষা উপবৃত্তি থেকে বঞ্চিত হওয়া ১৬৯ জন শিক্ষার্থী অংশ গ্রহণ করেন।

এ সময় বক্তব্য রাখেন, ওই কলেজের প্রথম বর্ষের ছাত্র রাজু আহমেদ ও শাহনাজ খাতুন।শিক্ষার্থীরা অভিযোগ করে বলেন, আমরা প্রথম বর্ষের ১৬৯ জন শিক্ষার্থী রয়েছি। কলেজের ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষ শফিকুল ইসলাম তার দায়িত্বের অবহেলার কারনে উপবৃত্তির ফরম অনলাইনে পূরণ করতে পারেনি। আমরা শিক্ষা মন্ত্রাণালয়ের ঘোষনা মোতাবেক যথা সময়ে আবেদন ফরম পূরণ করে কলেজে জমা দেই।

শিক্ষা উপবৃত্তির জন্য অনলাইনে আবেদনের শেষ তারিখ ছিল ১০ এপ্রিল ২২ ইং।শিক্ষার্থী শাহনাজ পারভীন বলেন, আমরা ১৬৯ জন শিক্ষার্থী উপবৃত্তি থেকে বঞ্চিত হয়েছি। সরকারের কাছে উপবৃত্তির জন্য দাবী করছি।উল্লেখ্য যাদুরচর ডিগ্রি কলেজের গর্ভনিং বডির সভাপতি আব্দুস সালাম মন্ডল গত ১১ অক্টোবর ২১ ইং স্বাক্ষরিত পত্রের মাধ্যমে অধ্যক্ষ রফিকুল ইসলামকে বহিস্কার করে একই তারিখে মো. শফিকুল ইসলামকে ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষ হিসেবে দায়িত্ব দেন।

অধ্যক্ষ রফিকুল ইসলাম সভাপতির স্বাক্ষরিত সাময়িক বহিস্কারপ্রত্রের বিরুদ্ধে হাই কোর্টে রিট করলে গত ১৩ মার্চ ২২ইং ওই পত্র স্থগিত করে দেয় হাই কোর্ট। এতে ক্ষিপ্ত হয়ে ১৮ মার্চ ২২ ইং অধ্যক্ষের কক্ষে তালা ঝুলিয়ে অফিসিয়ালি কাজ বন্ধ করে দেয় ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষ শফিকুল ইসলাম।

পরে অধ্যক্ষ রফিকুল ইসলাম ২০ মার্চ ২২ ইং উপজেলা নির্বাহী অফিসার বরাবর লিখিত আবেদন দেন। এসময় দায়িত্বে থাকা ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষ শফিকুল ইসলামের অবহেলা ও তার গাফলতির কারনে ১৬৯ জন শিক্ষার্থী উপবৃত্তি থেকে বঞ্চিত হয়।

দেশেরকথা/বাংলাদেশ

এই বিভাগের আরো খবর

ফেসবুকে আমরা

এই সাইটের কোনো লেখা বা ছবি অনুমতি ছাড়া কপি করা বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি।কপিরাইট @২০২০-২০২৪ দৈনিক দেশেরকথা কর্তৃক সংরক্ষিত।
প্রযুক্তি সহায়তায় Shakil IT Park