1. alaminjhalakati@gmail.com : Al-amin khan : Al-amin khan
  2. news.desherkotha.bd@gmail.com : ARIF KHAN : ARIF KHAN
  3. arifkhanjkt74@gmail.com : daynikdesherkotha :
স্কুলের প্রধান শিক্ষকের বিরুদ্ধে চাকরি দেওয়ার নামে ঘুষ নেওয়ার অভিযোগ - দৈনিক দেশের কথা
সোমবার, ২০ সেপ্টেম্বর ২০২১, ০২:৩২ অপরাহ্ন

স্কুলের প্রধান শিক্ষকের বিরুদ্ধে চাকরি দেওয়ার নামে ঘুষ নেওয়ার অভিযোগ

ঈশ্বরদী প্রতিনিধি
  • প্রকাশিত সোমবার, ৬ সেপ্টেম্বর, ২০২১
  • ৪৮ বার দেখেছেন

শিক্ষা হলো জাতির মেরুদন্ড, শিক্ষক হলো জাতি তৈরীর কারিগর ,শিক্ষকের বিরুদ্ধে চাকরি দেওয়ার নামে ঘুষ নেওয়ার অভিযোগ উঠেছে। সম্প্রতি ঈশ্বরদী উপজেলার সলিমপুর ইউনিয়নের অন্তঃগত ভাষা শহীদ বিদ্যানিকেতন স্কুলে গত পঁচিশে জুলাই তিনটি পদে নিয়োগ বিঙ্গপ্তি দেওয়া হলে পঁচিশ জন প্রার্থী আবেদন করে ,গত বৃহস্পতিবার (০২.০৯.২১) তাং তারিখে নিয়োগ পরিক্ষা দেখায় ভাষা শহীদ বিদ্যানিকেতন স্কুলের প্রধান শিক্ষক মুক্তার হোসেন ।

এই এলাকার মৃত আব্দুল ছঈম উদ্দিন সরদারের ছেলে রাজু আভিযোগ করে বলেন,আমি গরিব মানুষ আমার একটা চাকরির খুব দরকার হলে তখন আমি ভাষা শহীদ বিদ্যানিকেতন স্কুলের প্রধান শিক্ষক মুক্তার হোসেন স্যারের সাথে কথা বলি তখন স্যার আমার কাছে পাঁচ লক্ষ টাকার দাবি করে । ভাষা শহীদ বিদ্যানিকেতন স্কুলের প্রধান শিক্ষক মুক্তার হোসেন আমাকে বলে পাঁচ লক্ষ টাকা দিতে পারলে  স্কুলের নিরাপত্তা প্রহরীর চাকরিটা আমাকে দিবে ।

তখন আমাদের শেষ সম্বল বাড়ির ভিটা জমি আমার বড় ভাইয়ের  বিক্রি করে আমার খালাতো ভাই ও আমার বন্ধু জিয়া মোল্লা কে সঙ্গে নিয়ে গোপনে প্রধান শিক্ষক  মুক্তার হোসেনের  নিজস্ব বাস ভবনে গত ২৫/০৮/২০২১ ইং তারিখে রাত ৭.৩০ মিনিটে টাকা দিয়ে আসি । 

যথারিতি আমি গত ০২/০৯/২০২১ তারিখে নিরাপত্তা কর্মী পদে লিখিত ও মৌখিক পরিক্ষায় অংশগ্রহণ করি । 
 কিন্তু প্রধান শিক্ষক গোপনে অন্য জনের কাছে থেকে আরো বেশি টাকা পেয়ে তাকে চাকরি দেয় ।  আমাকে চাকরি দেয়নি আমার দেওয়া তিন লক্ষ টাকা আমাকে ফেরত দেয়নি । 

স্থানীয় বাসিন্দা জিয়াউল ইসলাম বলেন,রাজু আমার ছোট ভাই সে বেকার ছিলো ওর চাকরির জন্য মুক্তার মাষ্টারের সাথে কথা হয়,এবং পাঁচ লক্ষ টাকা কন্টাক হয় তিন লক্ষ টাকা পরিক্ষার আগে নেয় এবং দুই লক্ষ টাকা নিয়োগ পত্র দেওয়ার পরে টাকা দেওয়ার কথা ছিলো। টাকা টা দেওয়ার সময় রাজু আমাকে ও শহিদুল্লাহ সরদার কে সঙ্গে করে নিয়ে গিয়ে টাকা’টা দিছে ।

জমি জমা শেষ করে দিসে ওর সর্বস্ব শেষ করে দেছে ।ঔ এলাকার শাজাহান মল্লিকের ছেলে নাজমুল হোসেন জানান,আমি ভাষা শহীদ বিদ্যানিকেতন স্কুলে ছাত্র ছিলাম,আমি অফিস সহায়ক পদে চাকরির জন্য এ্যাপ্লায় করে ছিলাম আসলে এটা কি হলো পরিক্ষা দেওয়ার পর বুঝতে পারলাম। আগে তো সবাইকে জিঙ্গাসা করলাম তখন সবাইকে আসস্ত করলো যে এলাকার ছেলেদের মধ্যে চাকরি হবে এবং এই স্কুলের ছাত্রদের মধ্যে আমরা নেবো। পরবর্তিতে দেখলাম সব বাহিরের, এই স্কুলের ছাত্র হিসাবে কি কেউ শিক্ষাগত যোগ্যাতায় চাকরি পাবে না? তাহলে স্কুলে কি শিক্ষলাম আমাদের কি শিক্ষানো হলো ? অফিস সহায়ক পদে চাকরি করার মতো কি আমাদের স্কুলের ছাত্রদের  যোগ্যাতা নাই ।

স্থানীয়রা দুঃখ প্রকাশ করে বলেন, আমরা এই স্কুল তৈরীর সময় অনেক শ্রম দিয়েছি, রাতের আধারে মাটি কেটেছি ,বাঁশঝাড় থেকে বাঁশ কেটেছি অনেক কষ্ট করে স্কুল প্রতিষ্ঠিত করেছি কিন্তু  মুক্তার মাষ্টার আমাদের ভাই ভাস্তিদের চাকরি না দিয়ে টাকার বিনিময়ে বাইরের মানুষকে চাকরি দিয়েছে । আমরা মুক্তার মাষ্টারের দৃষ্টান্তমুলক শাস্তি চাই । 

পরে ভাষা শহীদ বিদ্যানিকেতন স্কুলের প্রধান শিক্ষক মুক্তার হোসেনের বিরুদ্ধে ভুক্তভোগী ও স্থানীয়রা স্কুলের সামনে মানববন্ধন করে প্রধান শিক্ষকের অপসরণের দাবি করে বলেন, আমাদের এক দফা এক দাবি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে কোনো দূর্নতি চলবে না, আমরা আগের নিয়োগ বাতিল চায়, পূর্ণরায় নিয়োগ বিঙ্গপ্তী চায় এবং শিক্ষক মুক্তার হোসেনের দৃষ্টান্তমুলক শাস্তি চাই ।

  এ বিষয়ে ভাষা শহীদ বিদ্যানিকেতন স্কুলের প্রধান শিক্ষক মুক্তার হোসেনের সাথে মুঠোফোনে যোগাযোগ করলে তিনি জানান,এ বেপারে যদি কেউ কোনো অভিযোগ করে থাকে তাহলে অভিযোগ সম্পন্ন মিথ্যা ,বানোয়াট ,এবং উদ্দেশ্যপ্রনোদিত ।

শেয়ার করুন

এ জাতীয় আরো খবর
এই সাইটের কোনো লেখা বা ছবি অনুমতি ছাড়া কপি করা বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি। কপিরাইট @২০২০-২০২১
WEB DEVELOPMENT BY KB-SOFTWARES