1. admin@daynikdesherkotha.com : Desher Kotha : Daynik DesherKotha
  2. arifkhanhrd74@gmail.com : desher kotha : desher kotha
২০৩০ সালের মধ্যেই ক্যান্সার ও হৃদরোগের টিকা আনছে মডার্না - দৈনিক দেশেরকথা
মঙ্গলবার, ২১ মে ২০২৪, ০৭:৫৫ অপরাহ্ন
শিরোনাম :
১৮২ কোটি ৪০ লাখ টাকার সয়াবিন তেল কিনবে সরকার উলিপুরে জাল ভোট দিতে এসে আটক ব্যাক্তির ১৫ দিনের  কারাদণ্ড ভূরুঙ্গামারীতে মোবাইল কিনে না দেওয়ায় ৬ষ্ঠ শ্রেণির ছাত্রীর আত্মহত্যা  নাটোরের নলডাঙ্গায় ট্রেনের ধাক্কায় স্কুল ছাত্র নিহত! ২০২৪ সালে ২৪ লাখ বৃক্ষে ঢাকবে চট্টগ্রাম: জেলা প্রশাসক রাজধানীতে ব্যাটারিচালিত রিকশা চালু রাখার নির্দেশ প্রধানমন্ত্রীর বাজেট অধিবেশন শুরু হবে আগামী ৫ জুন মূল্যস্ফীতি যাতে নিয়ন্ত্রণে থাকে সে চেষ্টা করে যাচ্ছে সরকার: প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা কিশোরগঞ্জে বিদ্যুৎস্পর্শে বৃদ্ধের মৃত্যু আজ থেকে ইলিশসহ সব ধরনের মাছ শিকারে ৬৫ দিনের  নিষেধাজ্ঞা।

২০৩০ সালের মধ্যেই ক্যান্সার ও হৃদরোগের টিকা আনছে মডার্না

অনলাইন ডেস্ক
  • প্রকাশ শনিবার, ৮ এপ্রিল, ২০২৩

 100 বার পঠিত

ওষুধ প্রস্তুতকারী কোম্পানি মডার্নার প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা ড. পল বার্টন ক্যান্সার এবং হার্টের রোগীদের জন্য সুখবর দিয়েছেন। তিনি বলেছেন, তার কোম্পানি ২০৩০ সালের মধ্যেই এই দুটি রোগের টিকা নিয়ে আসছে। এক্ষেত্রেও ব্যবহার করা হয়েছে এমআরএনএ প্রযুক্তি। এই প্রযুক্তি ব্যবহার করে তারা তৈরি করেছে করোনাভাইরাসের টিকা। তাই এমআরএনএ’কে দেখা হয় টিকার জগতে স্বর্ণালী যুগের সূচনাকারী হিসেবে। এ খবর দিয়েছে অনলাইন ডেইলি মিরর। ড. পল বার্টন বলেছেন, ২০৩০ সালের মধ্যে নিরাময়যোগ্য অবস্থায় আছেন এমন ব্যক্তিদের জন্য ব্যবহার করা যাবে তাদের টিকা। তাতে রক্ষা পাবে হাজার হাজার মানুষের জীবন। তিনি আরও বলেছেন, এরই মধ্যে গবেষণায় দারুণ সাফল্য পাওয়া গেছে। তবে এই টিকা করোনাভাইরাসের টিকার মতো সর্বসাধারণের জন্য ব্যবহারযোগ্য হবে না। কারণ, এর দাম থাকবে অনেক বেশি। ফলে উচ্চ পর্যায়ের ব্যক্তিরা এটা ব্যবহার করতে পারবেন।
যুক্তরাষ্ট্রে প্রতি বছর হার্টের সমস্যা ও ক্যান্সারের কারণে মারা যান বিপুল সংখ্যক মানুষ। বছরে প্রায় ১৩ লাখ মানুষ মারা যান সেখানে এই দুটি রোগে। এই সংখ্যা যুক্তরাষ্ট্রে সব মৃত্যুর হিসাবে প্রতি তিনটিতে একটিরও বেশি। অনলাইন দ্য গার্ডিয়ানকে ড. পল বার্টন বলেছেন, আমাদের হাতে এই টিকা চলে আসবে এবং তা হবে উচ্চ মাত্রায় কার্যকর। এতে হাজার হাজার মানুষের জীবন রক্ষা পাবে। বহুবিধ ভিন্ন রকম টিউমার ক্যান্সারে এই টিকা ব্যবহার করা যাবে। ড. পল বলেন, কয়েক মাসে আমরা আরও কিছু জিনিস শিখতে পেরেছি। তা হলো- এমআরএনএ শুধু সংক্রামক ব্যাধির জন্যই শুধু ব্যবহার করা হয় অথবা শুধু কোভিডের জন্য ব্যবহার করা হয়। কিন্তু গবেষণায় তথ্যপ্রমাণ পাওয়া গেছে যে, বিষয়টি মোটেও তা নয়। তিনি বলেন, সব রকম রোগের ক্ষেত্রে এই এমআরএনএ ব্যবহার করা যেতে পারে। এর মধ্যে আছে ক্যান্সার, সংক্রামক রোগ, কার্ডিওভাসকুলার রোগ, অটোইমিউন ডিজিজ এবং বিরল রোগ। তার ভাষায়, এর সব ক্ষেত্রেই আমরা গবেষণা করছি। তাতে চমৎকার ফল পাওয়া গেছে।

এই টিকা কীভাবে কাজ করবে সে বিষয়ে বিস্তারিত কিছু বলেননি ড. পল। তবে আগের গবেষণা দেখাচ্ছে যে, কীভাবে এমআরএনএ ক্যান্সারের বিরুদ্ধে লড়াইয়ে ব্যবহার করা হতে পারে। এমআরএনএ টিকা কোষের ভেতরে গিয়ে এক রকম প্রোটিন সৃষ্টি করে। তা কোভিডের মতো বিশেষ প্যাথোজেনের বিরুদ্ধে রোগ প্রতিরোধী ব্যবস্থা উন্নত করে। বিজ্ঞানীরা বলছেন, এই নির্দেশনা ব্যবহার করে ক্যান্সার কোষেও কাজ হতে পারে। সেখানে ক্যান্সার সেলকে সতর্ক করে রোগ প্রতিরোধ ব্যবস্থা গড়ে তুলতে পারে এবং আক্রমণ থামাতে পারে। ক্যান্সার আক্রান্ত কারও দেহে এই টিকা দেয়ার আগে চিকিৎসকরা প্রথমে তার টিউমার থেকে বায়োপস্কি করবেন। তারপর ক্যান্সার কোষে এন্টিজেন শনাক্ত করবেন এবং এমআরএএ টিকার কোড নির্ধারণ করবে ওই কোষের জন্য। যেই কোড ওই ক্যান্সার কোষের ভেতরে একই এন্টিজেন সৃষ্টি করবে। চিকিৎসকরা এই টিকা তখন একজন রোগীর শরীরে প্রয়োগ করবেন, যাতে এন্টিজেন তৈরি হয়। এর বিরুদ্ধে সৃষ্টি করে রোগ প্রতিরোধ ব্যবস্থা।

রোগ প্রতিরোধী কোষকে তারপর প্রশিক্ষণ দেবে ক্যান্সার কোষকে ধ্বংস করে দিতে। দেহে আর কোনো ক্যান্সার কোষ আছে কিনা তাকে খুঁজে ফিরবে সে। চিকিৎসকরা বলেছেন, ক্যান্সারের বিভিন্নতা এবং রোগীর বিভিন্নতার ওপর ভিত্তি করে এমআরএনএ টিকা প্রয়োগ করা যেতে পারে। তবে এই টিকা হবে অনেক ব্যয়বহুল। বৃটেন এবং যুক্তরাষ্ট্রে এরই মধ্যে পরীক্ষামূলকভাবে প্রয়োগ শুরু হয়েছে এমআরএনএ ক্যান্সার টিকা। সামনের কয়েক মাসে এর ফল পাওয়া যেতে পারে। এরই মধ্যে ফেব্রুয়ারিতে যুক্তরাষ্ট্রের ফুড অ্যান্ড ড্রাগ এডমিনিস্ট্রেশন (এফডিএ) ‘বিস্ময়কর থেরাপি’ হিসেবে অনুমোদন দিয়েছে মডার্নার নিজের ক্যান্সারের টিকা।

দেশেরকথা/বাংলাদেশ

এই বিভাগের আরো খবর

ফেসবুকে আমরা

এই সাইটের কোনো লেখা বা ছবি অনুমতি ছাড়া কপি করা বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি।কপিরাইট @২০২২-২০২৩ দৈনিক দেশেরকথা কর্তৃক সংরক্ষিত।
প্রযুক্তি সহায়তায় Shakil IT Park