শনিবার, ১৩ অগাস্ট ২০২২, ০৬:৩৭ অপরাহ্ন
শিরোনাম :

শিকড়ের টানে ঢাকা ত্যাগ করছে কর্মব্যস্ত মানুষ

দেশেরকথা
  • প্রকাশ শনিবার, ৯ জুলাই, ২০২২
  • ৯১ বার-পাঠিত

ইদ মানে খুশি,ইদ মানে আনন্দ। বিশ্বের মুসলমান প্রতি বছরে দুটি ইদ উদযাপন করে। আর ইদ হচ্ছে মুসলমানদের সবচেয়ে বড় ধর্মীয় উৎসব। জনসংখ্যার দিক দিয়ে মুসলিম জাতি দ্বিতীয়। আর বাংলাদেশে প্রচুর উৎসাহ উদ্দীপনার মধ্য দিয়ে পালিত হয় পবিত্র ইদ।

এদেশের মানুষেরা যেমন ধর্মভীরু, তেমন কর্মঠ। কাজের সন্ধানে অনেক মানুষ গ্রাম ছেড়ে রাজধানী শহর ঢাকাতে অবস্থান করে। কিন্তু পরিবারের সাথে ইদের আনন্দ ভাগাভাগি করার জন্য দূর পাল্লার পথ পাড়ি দিয়ে চলে আসে। পরিবারের সাথে ইদ উদযাপন করা যেন ইদের আনন্দ দ্বিগুণ বেড়ে যায়।

প্রতি বছর ইদের সময় ব্যস্ত নগরী ঢাকা ফাঁকা হয়ে যায়। পরিবারের সাথে ইদ করার জন্য তারা লঞ্চ, বাস, স্টিমার, ট্রেনে করে বাড়ি ফেরে। কিন্তু টিকেট কাটার জন্য তারা কত চেষ্টা করে। এমন দৃষ্টান্ত দেখা যায় কমলাপুর রেলস্টেশনে। সেখানে হাজার হাজার মানুষের উপচে পড়া ভিড়। রেলস্টেশন থেকে উউত্তর-দক্ষিণ বঙ্গে যাচ্ছে। কিন্তু তারা ট্রেনের টিকেট না পেয়ে ঝুঁকি নিয়ে ছাদে করে শিকড়ের টানে ছুটে চলছে। এতে মানুষের জীবনের ঝুঁকি এবং দুর্ঘটনার পরিমাণ বেড়েই চলেছে। এছাড়া সেলফি তোলার জন্য চলন্ত ট্রেনে জানালা দিয়ে মাথা বের করছে। এতে অনেক সময় তাদের মাথায় আঘাত লাগছে। তবে ট্রেনের ভিতর থেকে দূরের পরিবেশ দেখতে খুব মনরম লাগে। আর ট্রেনের ঝক ঝক শব্দে ইদের খুশি বাড়িয়ে দেয়।

ভীড় শুধু রেলস্টেশনে নয়, প্রতি টিকেট কাউন্টারে। তারা টিকেট কাটার জন্য অপেক্ষা করছে। তবুও অনেক মানুষ টিকেট পাচ্ছে না। কিন্তু ট্রেনের ছাদে মানুষ ঝুঁকি নিয়ে গেলেও বাসের ছাদে যেতে পারছে না। এছাড়া টিকেট কাটার পর নির্ধারিত সময়ে বাস কাউন্টারে আসে না। এতে মানুষ তীব্র ভোগান্তির শিকার হচ্ছে। গুলিস্তান টিকেট কাউন্টারে হাজারো মানুষের উপস্তিতি এটাই প্রমাণ করে। তবে আশার বার্তা যে অনেক ভোগান্তির পর দক্ষিণ অঞ্চলের মানুষ পদ্মা সেতু দিয়ে বাড়িতে যাচ্ছে। যা মানুষের কাছে একটা ইদের আনন্দ।

কর্মব্যস্ত মানুষ অল্প ছুটি পেলেও পরিবারের সাথে ইদ উদযাপন করার জন্য গ্রামে চলে যাচ্ছে। কারণ পরিবার হচ্ছে মানুষের সবচেয়ে আপন জন। ইদের আনন্দ ছড়িয়ে যাক প্রতি প্রাণে। আর এবার ইদে বাড়তি উৎসাহ উদ্দীপনা থাকবে। কারণ দীর্ঘ ২ বছর করোনা সংক্রমণের মধ্যে অতিবাহিত করেছে বিশ্ববাসী।

মোঃ আবদুল্লাহ আলমামুন
সমাজবিজ্ঞান বিভাগ
জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়

দেশেরকথা/বাংলাদেশ

এই বিভাগের আরো খবর

ফেসবুকে আমরা

এই সাইটের কোনো লেখা বা ছবি অনুমতি ছাড়া কপি করা বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি।কপিরাইট @২০২০-২০২১ দৈনিক দেশেরকথা কর্তৃক সংরক্ষিত।
Theme Customized By Theme Park BD