বুধবার, ১০ অগাস্ট ২০২২, ০৪:১৯ অপরাহ্ন

মা-মেয়েকে বিবস্ত্রকরে মারধরের অভিযোগ

মোঃ ইলিয়াস
  • প্রকাশ রবিবার, ১৭ জুলাই, ২০২২
  • ৮৮ বার-পাঠিত

ঝালকাঠির নলছিটিতে তুচ্ছ ঘটনাকে কেন্দ্র করে মা এবং মেয়েকে বিবস্ত্র করে মারধরের অভিযোগ পাওয়া গেছে দুঃসম্পর্কের এক আত্মীয়ের বাবুল খান’র বিরুদ্ধে।

গত ১৪ জুলাই বৃহস্পতিবার বেলা সাড়ে ১২ টার দিকে নলছিটি উপজেলার ভৈরবপাশা ইউনিয়নের প্রতাপ গ্রামে এ ঘটনা ঘটে।
ঘটনার পরে ঝালকাঠি সদর হাসপাতালে গিয়ে প্রথমিক চিকিৎসা নিয়ে বাড়ি চলে যায় নির্যাতিতা ৩৫ বছর বয়সী মা এবং ২১ বছর বয়সী মেয়ে।লজ্জার কারনে বিষয়টি তারা ঐদিন গোপন রাখে।

ঘটনার পরেরদিন শুক্রবার বিকেলে নির্যাতিতা মেয়ের স্বামী রিপন হাওলাদার বাদি হয়ে স্ত্রী ও শাশুরীর উপর নির্যাতনকারীদের বিচার চেয়ে নলছিটি থানায় লিখিত অভিযোগ দেয়।

ঘটনার বিবরন দিয়ে নির্যাতিতা নারী বলেন, ‘ঘটনার দিন ৫৫ বছর বয়সী বাবুল খান তার পরিবারের সদস্যদের নিয়ে আমার ঘরে এসে প্রথমে আমার মেয়েকে মারধর করে গায়ের জামা টেনে ছিড়ে ফেলে।

তখন বাবুলের সাথে তার ছেলে আল-আমিন খান, মেয়ে নিশি বেগম, শারমিন এবং স্ত্রী আয়েশা বেগম সহ আরো কয়েকজন লোক ছিলো। আমি মেয়েকে বাচাতে এলে তারা আমাকে একাধারে মারধর করতে থাকে, তখন আমার শরীরের কাপড় খুলে আমাকে মেয়ের সামনে বিবস্ত্র করে ফেলে।

ওই নারী আরো বলেন, ‘বিবস্ত্র করার পর আমি দৌরে গিয়ে গায়ে একটি চাদর পেচিয়ে মেয়ে পাশের ঘরে থাকা মেয়ে জামাইয়ের কাছে আশ্রয় নেই।

কিন্তু বাবুল সেখানে গিয়ে আমার জামাতাকেও ঝারু দিয়ে পিটিয়ে আহত করে। আমরা ওদের নির্যাতন সইতে না পেরে ৯৯৯ নম্বারে ফোন দিলে বাবুলরা পালিয়ে যায়।

পরে পুলিশ এসে আমাদেরকে থানায় গিয়ে অভিযোগ দিতে বলেন। আমরা থানায় অভিযোগপত্র লিখে দিয়ে হাসপাতাল থেকে চিকিৎসা নিয়ে রাতে বাড়ি চলে আসি।’
এদিকে ১৫ জুন শুক্রবার বিকালে স্থানীয় গন্যমান্যরা ভৈরবপাশা ইউনিয়ন পরিষদে শালিস মিমাংসা করে দেয়ার কথা বললে ভূক্তভোগীরা সেখানে গিয়ে অপেক্ষা করতে থাকে। কিন্তু প্রতিপক্ষ সেখানে যায়নি। 

মা এবং মেয়েকে মারধরের কথা স্বিকার করে  অভিযুক্ত বাবুল খান বলেন, ‘মারামারির চলাকালে উভয়পক্ষের ধরাধরিতে তাদের গায়ের কাপড় খুলে গেছে হয়তোবা। আমি টেনে খুলিনাই। যা হবার হয়েছে, রিপোর্ট করার দরকার নাই, এটা নিজেরা মিমাংসা করে নিবো।

নলছিটি থানার অফিসার ইনচার্জ আতাউর রহমান শনিবার দুপুরে মুঠোফোনে বলেন, অভিযোগ পেয়েছি, তদন্ত সাপেক্ষে ঘটনার সত্যতা পেলে দোষিদের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে।

দেশেরকথা/বাংলাদেশ

এই বিভাগের আরো খবর

ফেসবুকে আমরা

এই সাইটের কোনো লেখা বা ছবি অনুমতি ছাড়া কপি করা বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি।কপিরাইট @২০২০-২০২১ দৈনিক দেশেরকথা কর্তৃক সংরক্ষিত।
Theme Customized By Theme Park BD