বৃহস্পতিবার, ০৭ জুলাই ২০২২, ১১:১৬ পূর্বাহ্ন
শিরোনাম :
জামালপুর রেজাল্ট নিয়ে বাড়ি ফেরা হলোনা সমৃদ্ধির কিশোরগঞ্জে টুংটাং শব্দে সরগরম হয়ে উঠেছে কামারপল্লী ফের শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধের কোনো পরিকল্পনা নেই ফেসবুকে প্রধানমন্ত্রীর কন্যাকে কটুক্তি করা সেই যুবক রনি রিমাণ্ডে সুন্দরগঞ্জে মাদক দ্রব্য রোধকল্পে কর্মশালা পিরোজপুরে ৬ জন সরকারী কর্মকর্তা কর্মচারীদের শুদ্ধাচার পুরস্কারের চেক তুলে দেন জেলা প্রশাসন মোহাম্মদ জাহেদুর রহমান পবিত্র ঈদুল আযহা উপলক্ষে প্রধানমন্ত্রীর ঈদ উপহার ভিজিএফের চাল বিতরণ মতলব উত্তরে মহিলা যুবলীগের প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী উপলক্ষে কেক কাটা র‍্যালি ও আলোচনা সভা রেওলয়েতে আউটসোর্সিংয়ে জনবল নিয়োগের প্রতিবাদে ঈশ্বরদীতে বিক্ষোভ মিছিল ও মানববন্ধন পাবনার ঈশ্বরদীতে ‘পাগলা রাজা’ বিক্রি নিয়ে দুশ্চিন্তায় রেজাউল

মাধবপুর চৌমুহনী সড়কের সংস্কার তিন বছরেও শেষ হয়নি দুর্ভোগে স্থানীয়রা।

লিটন পাঠান
  • প্রকাশ সোমবার, ১৬ মে, ২০২২
  • ২৯ বার-পাঠিত


হবিগঞ্জ প্রতিনিধি>মাধবপুর মনতলা চৌমুহনী ধর্মঘর হরষপুর রাস্তার কাজ ধীরগতিতে চলার কারণে হাজারও মানুষ দুর্ভোগে পড়েছেন তিন বছরেও শেষ হয়নি হবিগঞ্জের মাধবপুর মনতলা চৌমুহনী ধর্মঘর সড়কের কাজ নির্দিষ্টসময়ে কাজ শেষ না হওয়ায় চরম দুর্ভোগে পড়েছেন কয়েক হাজার মানুষ ধর্মঘর, চৌমুহনী, বহরা, আদাঐর ইউনিয়ন এবং পাশ্ববর্তী বিজয়নগর উপজেলার কয়েক হাজার মানুষকে প্রতিদিন ওই সড়ক দিয়ে কষ্ট করে উপজেলা সদরে আসতে হয়।

জানা যায় মাধবপুর-চৌমুহনীর ১১ কিলোমিটার সড়কটি সংস্কার করার জন্য ১৪ কোটি ৬৪ লাখ টাকা বরাদ্দ দেয় এলজিআইডি। টেন্ডার আহ্বান করা হলে কাজ পায় মেসার্স হাসান এন্টারপ্রাইজ। ২০১৯ সালে মাধবপুর-চৌমুহনী সড়কের কাজ শুরু করে ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠান মেসার্স হাসান এন্টারপ্রাইজ। ২০২১ সালে কাজ শেষ করার কথা থাকলেও এখনো কাজ শেষ করতে পারেননি তারা।

মো. উয়সল মিয়া নামের এক সিএনজি চালক জানান, দিনের বেলাও আমরা এ রাস্তা দিয়ে চলাচল করতে পারি না ধুলা-বালিতে ভরে যায় সব গাড়ি রাস্তাঘাটের মধ্যে নষ্ট হয়, উল্টে যায় চাকা পামচার হয়। সব সময় আমাদের দুর্ভোগ পোহাতে হয় একটাই অনুরোধ আমাদের রাস্তাটা দ্রুত যেন করে দেয়।

দেবীপুর সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক ইস্কান্দার মীর্জা ফারুক জানান, মাধবপুরের দক্ষিণাঞ্চলের একটি গুরুত্বপূর্ণ রাস্তা এটি। মাধবপুর থেকে হরষপুর চৌমুহনী রাস্তার কাজ ধীরগতিতে চলার কারণে খুব কষ্টে চলাফেরা করছি আমরা আমাদের এই রাস্তাটুকু যেন দ্রুত সংস্কার করে আমাদের দুঃখ-দুদর্শা থেকে যেন মুক্তি দেয়।

চৌমুহনী ইউনিয়নের চেয়ারম্যান মাহবুবুর রহমান সোহাগ জানান, এটি একটি জনবহুল রাস্তা। দীর্ঘদিন ধরে এই অচল অবস্থার কারণে জনমনে একটা বিরূপ প্রতিক্রিয়া দেখা দিয়েছে ঠিকাদার কারো কথা শোনেন না তিনি তার ইচ্ছে মতো কাজ করেন।

হাসান এন্টারপ্রাইজের ম্যানেজার আরিফুর রহমান জানান, ধীরগতির কারণ হচ্ছে করোনায় কাজ অনেক দিন বন্ধ ছিল। কারোনার কারণে কোথাও কাজ করা যাচ্ছিল না নতুন করে ইট আসছে এখন আমরা কাজ শুরু করছি। আমাদের হাতে যে সময় আছে তার মধ্যে কাজ শেষ করে দেব।

হবিগঞ্জ জেলা প্রকৌশলী আব্দুল বাছির জানান, ২০১৯ সালে কাজ শুরু হয় করোনা ও ভারত থেকে পাথর আনতে সমস্যার কারণে কাজ বন্ধ ছিল প্রায় ৭ মাস এলসি পাথর আমদানি বন্ধ ছিল এ কারণে কারপেটিং কাজে বিঘ্ন ঘটে। ঠিকাদারের আবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে এর সময় বাড়ানো হয়েছে জুন পর্যন্ত আমরা চেষ্টা করছি দ্রুতই কাজটি শেষ করার।

দেশেরকথা/বাংলাদেশ

এই বিভাগের আরো খবর

ফেসবুকে আমরা

এই সাইটের কোনো লেখা বা ছবি অনুমতি ছাড়া কপি করা বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি।কপিরাইট @২০২০-২০২১ দৈনিক দেশেরকথা কর্তৃক সংরক্ষিত।
Theme Customized By Theme Park BD