বুধবার, ০৬ জুলাই ২০২২, ১০:১১ পূর্বাহ্ন
শিরোনাম :
আত্রাইয়ে দর্শনীয় ষাঁড় সম্রাটের দাম হাঁকা হয়েছে ১২ লাখ টাকা রাণীশংকৈলে পুকুড়ের পানিতে ডুবে স্কুল ছাত্রের মৃত্যু জামালপুরে স্কুল ছাত্রী ধর্ষনের অভিযোগ,থানায় মামলা মতলব উত্তরে ডাক্তারের ঐকান্তিক প্রচেষ্টায় পাল্টাচ্ছে হাসপাতালের পরিবেশ, বাড়ছে সেবার মান কাল থেকে গবিতে ঈদুল আযহার ছুটি  শুরু দম ফেলার ফুরসত নেই ত্রিশালের কামারদের! ছেলের সামনে বাবাকে  কুপিয়ে হত্যা, পিতা-পুত্র গ্রেফতার… রাণীশংকৈলে বিপুল উপস্থিতিতে শিক্ষক আইরিনের জানাযা ও দাফন সম্পন্ন চলনবিলে কৃষকের ঘরে উঠতে শুরু করেছে নতুন পাট, কৃষকের ফুটে উঠেছে রঙিন হাঁসি পাবনায় তীব্র লোডশেডিংয়ে দুর্ভোগে সাধারণ মানুষ, ঈদ বাজারে লোকসানের আশঙ্কা

বাবাকে জড়িয়ে ধরে চিৎকার করে বলতে ইচ্ছা করে, বাবা তুমি আমার দেখা পৃথিবীর শ্রেষ্ঠ যোদ্ধা ‘

দেশেরকথা
  • প্রকাশ রবিবার, ১৯ জুন, ২০২২
  • ১৪৭ বার-পাঠিত

গবি প্রতিনিধি>বলেন বাবা শব্দটা উচ্চারিত হওয়ার সাথে সাথে হ্রদয়ে শ্রদ্ধা এবং ভালোবাসার এক অনুভব জাগ্রত হয়। বাবার ছায়া বট গাছের ছায়ার চাইতেও অনেক বড় হয়। কারন বাবার তার সন্তান কে পৃথিবীর সব ধরনের উত্তাপ থেকে রক্ষা করেন ।

বাবা-মা দুজনই সন্তানকে লালনপালন করে বড় করে তোলেন। কারও দায়িত্ব কারও চেয়ে কম নয়। তবে অনেক পরিবারে বাবাই একমাত্র উপার্জনক্ষম ব্যক্তি।

তার উপার্জনে সংসারের সকল ব্যয় নির্বাহ হয়। এক জন বাবার মূল্যবোধ, চিন্তা চেতনা তার সন্তানের উপর প্রভাব বিস্তার করে।
বাবাকে হারানোর মানে মাথার উপরে ছাদ হারিয়ে ফেলা। সেই ছাদ আমি হারিয়েছি অনেক আগেই।

বাবা তোমাকে আজ একটি বার দেখার জন্য হৃদয়ে হাহাকার করছে কাউকে বুঝাতে পারছি না। ১৪ জুলাই ২০১৪ তুমি আমাদের থেকে সকল মায়াজাল ছিন্ন করে চলে গেছ না ফেরার দেশে। বড় কষ্ট হচ্ছে তোমার চলে যাওয়ার সময় কাছে থেকে শেষ বিদায় জানাতে পারিনি।

এমনকি মা, বড় দাদা, আমি তোমাকে শেষ দেখাটিও দেখতে পারিনি – ক্ষমা কর আমাদের। সেজন্য আজও হৃদয়ে রক্তক্ষরণ থামেনি। তুমি দেখতে পাওনি হাজারো মানুষের ভালবাসায় সিক্ত হয়ে ঠাই নিয়েছ তাদের হৃদয়ে।

বাবা তুমি আমাদেরকে সব সময় বলতে ‘আমি টাকা গাছ তাই না নাড়াইলে গাছ থেকে ঝড় ঝড় করে টাকা পড়ে।‘ যে দিন নিজে রোজগার করবে বুঝবে টাকা রোজগার করতে কত কষ্ট।

এখন সেটা হাড়ে হাড়ে বুঝতে পারছি। একটু ভাবতে আমার চোখে জল চলে আসে ইচ্ছা করে বাবাকে জড়িয়ে ধরে চিৎকার করে কান্না করি আর বলি বাবা তুমি আমার দেখা পৃথিবীর শ্রেষ্ঠ যোদ্ধা।

পড়ালেখার জন্য না দুষ্টুমির জন্য শাসন করতে আমাকে। মাঝে মধ্যে মার দিতে, পরক্ষনেই আবার আদর করতে। বাবা কতদিন হল তোমার হাতে কোন মার খাইনা, খুব ইচ্ছা হচ্ছে মার খেতে। হাজারো কথা শেয়ার করতাম, টিনের চালা ঘরের বারান্দায় বসে আর মাকে রাগাতাম।

জানো বাবা, মা এখনো তোমার স্মৃতি আঁকড়ে ধরে সেই টিনের চালা ঘর থাকে কোনমতেই পাকা ঘরে থাকতে চায় না। আজ শুধু বলতে ইচ্ছা করছে, বাবা তুমি কি পার না আমাদের মাঝে আবার ফিরে আসতে? আজ ৮ বছর ১১ মাস ৫ দিন হলো তোমাকে ছাড়া আমরা কেমন আছি, তোমার কি একবারো দেখতে ইচ্ছে করে না?
বাবা তোমাকে নিয়ে লিখলে শেষ হবে না আমার হৃদয়ের স্মৃতিপটে রয়ে যাবে তোমার স্মৃতি চিহ্নটা।

শুধু মন খারাপ হয়ে যাবে – হাত বাড়ালে তোমাকে আর ছোঁয়া যাবে না, পা ছুঁয়ে প্রণাম করা হবে না, কোনদিন আর আদর করবে না, খুশী হবে না আমার কোনো সাফল্যে। আজ ‘বাবা দিবসে’ সকল বাবাকে জানাই আমার বিনম্র শ্রদ্ধা।

শেষে কবিতার ভাষায় বলব -বাবা তোমার স্মৃতি গুলো আজও আমায়, অশ্রু জলে ভাসায় ।আমায় নিয়ে স্বপ্ন তোমার ছিল যত, হৃদয়ে পুষেছি আমি অবিরত।

লেখক
পলাশ চন্দ্র রায় ফার্মেসি বিভাগ, ২য় বর্ষ

দেশেরকথা/বাংলাদেশ

এই বিভাগের আরো খবর

ফেসবুকে আমরা

এই সাইটের কোনো লেখা বা ছবি অনুমতি ছাড়া কপি করা বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি।কপিরাইট @২০২০-২০২১ দৈনিক দেশেরকথা কর্তৃক সংরক্ষিত।
Theme Customized By Theme Park BD