1. admin@daynikdesherkotha.com : Desher Kotha : Daynik DesherKotha
  2. arifkhanhrd74@gmail.com : desher kotha : desher kotha
  3. mdtanjilsarder@gmail.com : Tanjil News : Tanjil Sarder
জামাইকে ফাঁসাতে মেয়েকে খুন করল বাবা - দৈনিক দেশেরকথা
শনিবার, ০৪ ফেব্রুয়ারী ২০২৩, ০৯:২৭ পূর্বাহ্ন
শিরোনাম :
বিজ্ঞান শিক্ষায় পিছিয়ে বাংলাদেশ, স্মার্ট বাংলাদেশ গড়তে বিজ্ঞান শিক্ষার দৈন্যতা বড় একটি চ্যালেঞ্জ বগুড়ায় উপনির্বাচন নিয়ে জেলা আওয়ামী লীগের ধন্যবাদ জ্ঞাপন কিশোরগঞ্জে ভিজিডি কার্ডের সঞ্চয়ের টাকা ফেরত পাচ্ছেন সুবিধাভোগীরা কোনো কারনে পাঠ্যবই পৌঁছতে দেরি হলে ওয়েবসাইট থেকে পড়াতে শিক্ষকদের পরামর্শ দিয়েছেন শিক্ষামন্ত্রী পুরান ঢাকার ঐতিহ্যবাহী কলেজে অফিসার্স কাউন্সিল নির্বাচন ২০২৩ সেপ্টেম্বরে ভারত সফরে যাবেন জননেত্রী প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বিরামপুরে সড়ক দুর্ঘটনায় নিহত-২ উপ-নির্বাচন ঠাকুরগাঁওয়ে ভোটকেন্দ্রে নেই ভোটারের দেখা চাটখিলে রেড ক্রিসেন্টের উদ্যেগে শীতবস্ত্র বিতরণ ইবিতে অনুষ্ঠিত হয়েছে পিএইচডি সেমিনার

জামাইকে ফাঁসাতে মেয়েকে খুন করল বাবা

ডেস্ক রিপোর্ট
  • প্রকাশ রবিবার, ২২ জানুয়ারি, ২০২৩

 34 বার পঠিত

পরিবারকে না জানিয়ে পালিয়ে বিয়ে করেন পারুল। এতে ক্ষিপ্ত হয়ে ওঠে পারুলের বাবা আ. কুদ্দুছ খাঁ। পরে মেয়েকে বাড়িতে ফিরে এনে পরিকল্পিতভাবে হত্যা করেন কুদ্দুছ। আর সেই মামলায় ফাঁসিয়ে দেন মেয়ে জামাই নাছির উদ্দিন বাবুকে।

ঘটনার ৮ বছর পর তদন্তে বেরিয়ে আসে এমন চাঞ্চল্যকর তথ্য।টাঙ্গাইলের কালিহাতি উপজেলার গরিয়া গ্রামের কৃষক কুদ্দুছ খাঁর মেয়ে পারুল। গেল শুক্রবার মেয়েকে হত্যার বিষয়টি স্বীকার করে ঢাকার আদালতে ১৬৪ ধারায় স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দেন কুদ্দুছ। পুরো ঘটনাটি নিয়ে গণমাধ্যমের সঙ্গে কথা বলেন পিবিআই প্রধান অতিরিক্ত আইজিপি বনজ কুমার মজুমদার।

জানা গেছে, কুদ্দুছের ইচ্ছা ছিল মেয়ের বিয়ে দেবেন নিজ হাতে। কিন্তু পারুল বাবার অমতে পালিয়ে বিয়ে করেন প্রেমিক নাছির উদ্দিন বাবুকে। এতে বাবার মনে ক্ষোভের জন্ম নেয়। পরে মেয়েকে ফুসলিয়ে বাড়িতে এনে হত্যা করেন। এ ঘটনায় জামাইকে ফাঁসাতে করেন নানা ছঁক। মামলার পর মামলা, না-রাজি; কত কিছুই না করেছেন।

কিন্তু আইনের ফাঁকে শেষমেশ পুলিশের জালে ধরা পড়েছেন কুদ্দুছ।মেয়ে পালিয়ে যাওয়ার পর নিজের সম্মানহানির ঘটনায় পারুলকে হত্যার পরিকল্পনা করেন কুদ্দুছ খাঁ। সুযোগ বুঝে মেয়েকে বন্ধুর বাড়ি নিয়ে হত্যা করেন। টানা ৮ বছর ধরে মেয়ের জামাই নাছিরকে ফাঁসাতে মামলা চালিয়ে আসছিলেন।

পুলিশ, গোয়েন্দা বিভাগ (ডিবি), পুলিশ ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশন (পিবিআই), সিআইডি একাধিকবার মামলার তদন্ত করে। কোনো মামলায় নাছিরের সংশ্লিষ্টতা পায়নি তারা। কিন্তু আদালতে প্রতিবেদন দিলে না-রাজি দিতেন কুদ্দুছ।পরে পিবিআই ঢাকা জেলা হত্যাকাণ্ডের ঘটনায় সম্পূরক তদন্ত শুরু করে। এতেই বের হয় মূল রহস্য। ২০১৫ সালে বন্ধু মোকাদ্দেছ ওরফে মোকা মণ্ডলের সহযোগিতায় পারুলকে শ্বাসরোধে হত্যার পর নদীতে ফেলে দেন কুদ্দুছ।

এদিকে কুদ্দুছের বন্ধু মোকা মণ্ডলকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। রোববার (২২ জানুয়ারি) স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দির জন্য তাকে আদালতে পাঠানো হয়েছে।

দেশেরকথা/বাংলাদেশ

এই বিভাগের আরো খবর

ফেসবুকে আমরা

এই সাইটের কোনো লেখা বা ছবি অনুমতি ছাড়া কপি করা বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি।কপিরাইট @২০২০-২০২১ দৈনিক দেশেরকথা কর্তৃক সংরক্ষিত।
প্রযুক্তি সহায়তায় Shakil IT Park