1. admin@daynikdesherkotha.com : Desher Kotha : Daynik DesherKotha
  2. arifkhanhrd74@gmail.com : desher kotha : desher kotha
কাউখালীর নদীতে অবাধে মাছের পোনা নিধনের মহোৎসব চলছে - দৈনিক দেশেরকথা
বৃহস্পতিবার, ১৮ এপ্রিল ২০২৪, ০৬:০১ অপরাহ্ন
শিরোনাম :
খাগড়াছড়িতে প্রাণিসম্পদ সেবা সপ্তাহের উদ্বোধন  ভোজ্য তেলের দাম বাড়ানোর প্রস্তাব নাকচ, বিক্রি হবে আগের দামেই শনিবার ঢাকায় আসছে ভারতের পররাষ্ট্র সচিব রাঙ্গুনিয়ায় দাওয়াতে তাবলীগের নিছবতে ওলামায়েকেরামের আলোচনা সভা মাছ ধরতে গিয়ে পুকুরে ডুবে খালাতো ভাইবোনের মর্মান্তিক মৃত্যু   ঝালকাঠিতে ট্রাক-প্রাইভেটকার ও অটো রিক্সার সংঘর্ষে শিশুসহ ১‌২ জন নিহত সদরপুরে ঐতিহাসিক মুজিবনগর দিবস পালিত মুজিবনগর দিবসে বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে প্রধানমন্ত্রীর শ্রদ্ধা  জি এম এস পরিবহনের ধাক্কায় স্টিল ব্রীজের গার্ডার ভেঙ্গে  তীব্র যানজট টেস্ট পরীক্ষার নামে অতিরিক্ত টাকা নিলেই ব্যবস্থা: শিক্ষামন্ত্রী

কাউখালীর নদীতে অবাধে মাছের পোনা নিধনের মহোৎসব চলছে

দেশেরকথা
  • প্রকাশ বৃহস্পতিবার, ২১ এপ্রিল, ২০২২

 92 বার পঠিত

মোঃ জিয়াদুল হক,কাউখালী প্রতিনিধি>
কাউখালীর নদ নদীতে অবাধে মাছের পোনা ও রেনু নিধনের মহোৎসব চলছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। মৎস্য সংরক্ষণ আইন লংঘন করে অবাধে মা মাছ ও রেনু পোনা নিধন  চলছে। এতে বিলুপ্ত হয়ে যাচ্ছে বিভিন্ন প্রকার দেশি প্রজাতির মাছ।
 উপজেলার হাট-বাজার গুলোতে অবাধে কেনাবেচা হচ্ছে এই সকল মাছ। প্রশাসনের নাকের ডগায় উপজেলার সকল হাট বাজারে অবৈধ এই সকল মাছ  বিক্রি করা হলেও মৎস্য অধিদপ্তর কোন ব্যবস্থা গ্রহণ করছে না। 


খোদ উপজেলা আওয়ামী মৎস্যজীবী লীগের সভাপতি মোস্তাফিজুর রহমান সুমন অভিযোগ করে বলেন মৎস্য অধিদপ্তর সহ বিভিন্ন বাহিনীর চোখের সামনেই অবাধে এসকল মাছ ধরতে দেখা যায়। 
নদীর এক পাড়ে অবাধে অসাধু জেলেরা মাছ নিধনের জন্য ব্যস জাল পেতে বসে রয়েছে। অপর পাড়ে মৎস্য কর্মকর্তা সহ অন্যান্য দপ্তর নামে মাত্র অভিযান দেখান। নৌ-পুলিশ, কোষ্ট গার্ড, নৌ-বাহিনী সহ প্রশাসনের সকল স্তরে কঠোর নজরদারির পরেও কোন কাজে আসছে না রেনু পোনা রক্ষায়। 
এছাড়া বিভিন্ন ফাঁদ পেতে নিধন করায় দেশি প্রজাতির মাছ বিলুপ্তির পথে। একসময়ের সাধারণ মানুষের জনপ্রিয় মাছ ভেদা /রয়না, রাম টেংরা,গুলিসা টেংরা,পাবদা, দেশি প্রজাতির মাগুর, শিং, কৈ, শৌল, গজাল এখন আর অহরহ সব পুকুর খাল বিলে আগের মত মিলছে না। 
এর মূল কারণ হচ্ছে মৎস্য আইন না মেনে অবৈধভাবে মাছ নিধন। বাংলাদেশ সরকারের মৎস্য নিধন আইন ১৯৫০ এর ৩ নং অনুচ্ছেদে সুস্পষ্টভাবে উল্লেখ করা হয়েছে এপ্রিল থেকে আগস্ট পর্যন্ত খাল বিল পুকুর নালায় অবৈধভাবে ফাদঁ পেতে মাছ নিধন করা যাবে না।
 এই সময়ে সব ধরনের মাছের বংশ বৃদ্ধির জন্য ডিম ছাড়ছে। সরকার মা মাছ রক্ষার জন্য কঠোর পদক্ষেপ গ্রহন করলেও অসাধু জেলেদের অবৈধ জালের ফাঁদে মা মাছ ডিম ছাড়ার পরে তৈরী হওয়া রেনু পোনা রক্ষায় কার্যকরি পদক্ষেপ গ্রহন না করার অভিযোগ।
 বছরের অধিকাংশ সময়ই প্রশাসনের চোখের সামনেই অবাধে অবৈধ নেট জালের বেড়ায়, ব্যাস জাল, বাধা জাল, কাপড়ের নেট বাধা জাল সহ সব ধরনের নিষিদ্ধ ফাঁদ পেতে  মা-মাছ ও পোনা ধরা হয়। 
উপজেলার বেতকা, মেঘপাল, সুবিদপুর, মাগুরা, কাঠালিয়া, বিড়ালজুরি, চিরাপাড়া, শিয়ালকাঠি, ফলইবুনিয়া, জোলাগাতি সর্বত্রই খাল ও নদীতে অবাধে ফাঁঁদ পেতে মাছ নিধন করা হয়। এ ব্যাপারে জেলা মৎস্য কর্মকর্তা আব্দুল বারি জানান,এ বিষয় আমাদের নিয়মিত অভিযান চলছে।

দেশেরকথা/বাংলাদেশ

এই বিভাগের আরো খবর

ফেসবুকে আমরা

এই সাইটের কোনো লেখা বা ছবি অনুমতি ছাড়া কপি করা বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি।কপিরাইট @২০২২-২০২৩ দৈনিক দেশেরকথা কর্তৃক সংরক্ষিত।
প্রযুক্তি সহায়তায় Shakil IT Park