1. admin@daynikdesherkotha.com : Desher Kotha : Daynik DesherKotha
  2. arifkhanhrd74@gmail.com : desher kotha : desher kotha
  3. mdtanjilsarder@gmail.com : Tanjil News : Tanjil Sarder
এবার রমজানে ভোগ্যপণ্যের দাম ৩০ শতাংশ বাড়াবে: ট্যারিফ কমিশন - দৈনিক দেশেরকথা
শনিবার, ০৪ ফেব্রুয়ারী ২০২৩, ০৮:২৮ পূর্বাহ্ন
শিরোনাম :
বিজ্ঞান শিক্ষায় পিছিয়ে বাংলাদেশ, স্মার্ট বাংলাদেশ গড়তে বিজ্ঞান শিক্ষার দৈন্যতা বড় একটি চ্যালেঞ্জ বগুড়ায় উপনির্বাচন নিয়ে জেলা আওয়ামী লীগের ধন্যবাদ জ্ঞাপন কিশোরগঞ্জে ভিজিডি কার্ডের সঞ্চয়ের টাকা ফেরত পাচ্ছেন সুবিধাভোগীরা কোনো কারনে পাঠ্যবই পৌঁছতে দেরি হলে ওয়েবসাইট থেকে পড়াতে শিক্ষকদের পরামর্শ দিয়েছেন শিক্ষামন্ত্রী পুরান ঢাকার ঐতিহ্যবাহী কলেজে অফিসার্স কাউন্সিল নির্বাচন ২০২৩ সেপ্টেম্বরে ভারত সফরে যাবেন জননেত্রী প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বিরামপুরে সড়ক দুর্ঘটনায় নিহত-২ উপ-নির্বাচন ঠাকুরগাঁওয়ে ভোটকেন্দ্রে নেই ভোটারের দেখা চাটখিলে রেড ক্রিসেন্টের উদ্যেগে শীতবস্ত্র বিতরণ ইবিতে অনুষ্ঠিত হয়েছে পিএইচডি সেমিনার

এবার রমজানে ভোগ্যপণ্যের দাম ৩০ শতাংশ বাড়াবে: ট্যারিফ কমিশন

অনলাইন ডেস্ক
  • প্রকাশ সোমবার, ২৩ জানুয়ারি, ২০২৩

 26 বার পঠিত

ডলারের দাম বাড়ার কারণে আমদানি করা ভোগ্যপণ্যের দাম গত রমজানের তুলনায় এবার ৩০ শতাংশ বেশি হবে বলে জানিয়েছে বাংলাদেশ ট্রেড অ্যান্ড ট্যারিফ কমিশন।

সোমবার (২৩ জানুয়ারি) সকালে জাতীয় ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদফতরে এ কথা জানিয়েছে ট্যারিফ কমিশন।

ট্যারিফ কমিশনের উপপ্রধান মাহমুদুল হাসান বলেন, ডলারের দাম বেড়ে যাওয়া ও আন্তর্জাতিক বাজার পরিস্থিতির কারণে আমদানি করা ভোগ্যপণ্যের দাম গত রমজানের তুলনায় এবার ৩০ শতাংশ বেশি থাকবে।

এদিকে, ভোক্তার ব্যয়ের বোঝা হালকা করতে ভোগ্যপণ্যের শুল্কহার কমানোর সুপারিশ জাতীয় রাজস্ব বোর্ডে (এনবিআর) পাঠানোর কথা জানিয়েছেন জাতীয় ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদফতরের মহাপরিচালক এ এইচ এম সফিকুজ্জামান।

তিনি বলেন, ‘আজকের বৈঠকে আলোচনার পরিপ্রেক্ষিতে আমাদের এখান থেকে একটি সুপারিশ বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ে পাঠানো হবে। সেখান থেকে জাতীয় রাজস্ব বোর্ডের সঙ্গে বিষয়টি নিয়ে আলোচনা করা হবে।’

বৈঠকে চাহিদা-জোগানের সঠিক হিসাব রেখে বাজার তদারকির ওপর গুরুত্ব দেন আলোচকরা।

এদিন ব্যবসায়ীদের সঙ্গে বৈঠকে বসেন সরকারি কর্মকর্তারা। যেখানে বাজার কারসাজির হোতা হিসেবে বড় ব্যবসায়ীদের দায়ী করেন খুচরা ব্যবসায়ীরা।অন্যদিকে আমদানিকারকরা জানালেন, এলসি (ঋণপত্র) স্বাভাবিক না হলে রমজান মাসে পণ্যের সরবরাহ আর দরদামে সমস্যা হবে।
তারা বলেন, আমরা যদি ঠিকমতো এলসি না পাই, তাহলে সমস্যা হতে পারে। এখন ১০০ শতাংশ মার্জিন দিয়ে সবকিছু আমদানি করার কথা বলা হচ্ছে, এটি কিন্তু ঠিক নয়।

এ সময় ভোক্তার অধিকার নিয়ে কাজ করা সংগঠন দ্য কনজ্যুমারস অ্যাসোসিয়েশন অব বাংলাদেশের (ক্যাব) বক্তব্যে উঠে আসে কীভাবে করপোরেট প্রতিষ্ঠানের মুঠোবন্দি হয়ে যাচ্ছে দেশের ভোগ্যপণ্যের বাজার।ক্যাব বলেছে, এখন করপোরেট ব্যবসার নামে কোম্পানিগুলো মনোপলি তৈরি করে রেখেছে। আমদানি বাজারে মনোপলির মাধ্যমের পণ্য আটকে রেখে বাজারের অবস্থা বুঝে পণ্য ছাড় করার যে প্রবণতা, এই জায়গাটি আসলে খুব গুরুত্বপূর্ণ হয়ে উঠেছে।

দেশেরকথা/বাংলাদেশ

এই বিভাগের আরো খবর

ফেসবুকে আমরা

এই সাইটের কোনো লেখা বা ছবি অনুমতি ছাড়া কপি করা বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি।কপিরাইট @২০২০-২০২১ দৈনিক দেশেরকথা কর্তৃক সংরক্ষিত।
প্রযুক্তি সহায়তায় Shakil IT Park